class="post-template-default single single-post postid-7854 single-format-standard" >

নান্দাইলে মহিলা আওয়ামীলীগের সম্মেলনের মঞ্চ ভাংচুর ৩জন আহত

স্টাফ রিপোর্ট: ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার শেরপুর ইউনিয়নের পাচঁরুখী বাজারে মঙ্গলবার (১৫মে) শেরপুর ইউনিয়ন মহিলা আওয়ামীলীগের সমাবেশ স্থলের মঞ্চ ব্যাপক ভাংচুর ও হামলা চালিয়ে একই দলের অপর গ্রুপ পন্ড করে দিয়েছে। জানাযায়, শেরপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক হিসাবে সম্প্রতি উপজেলা আওয়ামীলীগ ইয়াহিয়া সুমন নামে একজনকে দায়িত্ব প্রদান করে। একই পদ প্রত্যাশী শেরপুর গ্রামের আমজদ বেপারীর পুত্র আবুল কালাম এতে ক্ষুব্ধ ছিল। মঙ্গলবার সকাল ১১টায় পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী মহিলা আওয়ামীলীগের উপজেলা শাখার নেতৃবৃন্দ অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকার কথা ছিল। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে স্থানীয় নেতৃবৃন্দের সাথে কথা বলে জানাযায়, প্রধান অতিথি সহ নেতৃত্ববৃন্দ সমাবেশ স্থলে পৌছার পূর্বেই আবুল কালাম আজাদ ও মুক্তার হোসেন টিটুর নেতৃত্বে ১০/১৫জন আওয়ামীলীগের নেতাকর্মী দেশীয় অস্ত্র নিয়ে মঞ্চ ভাংচুর করে সমাবেশ পন্ড করে দেয়। এসময় শেরপুর ইউনিয়ন যুবলীগ আহ্বায়ক বাদল মিয়া, ছাত্রলীগ নেতা মোবারক ও শ্যামল প্রতিপক্ষের হামলায় আহত হয়েছে। ঘটনার সংবাদ পেয়ে দ্রুত নান্দাইল মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মো. কামরুল ইসলাম মিয়া সহ একদল পুলিশ ঘটনাস্থল পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করেন। উদ্বোত ঘটনার প্রেক্ষিতে দলীয় নেতৃবৃন্দ মহিলা সমাবেশ স্থগিত করে। উক্ত ঘটনা নিয়ে শেরপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীদের মাঝে উত্তেজনা বিরাজ করছে। নান্দাইল মডেল থানার সিনিয়র এসআই নাজিম উদ্দিন হামলা ও ভাংচুরের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, “বিষয়টি নিজেদের মধ্যে সংঘটিত হয়েছে। বিকাল সাড়ে পাচঁটা পর্যন্ত উক্ত ঘটনায় থানায় কোন লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয় নাই।” শেরপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক (ভারপ্রাপ্ত) ইয়াহিয়া সুমন জানান, উপজেলা নেতৃবৃন্দের সাথে আলোচনা করে মঞ্চ ভাংচুর কারীদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করা হবে।নান্দাইলে মহিলা আওয়ামীলীগের সমাবেশ পন্ড ॥ মঞ্চ ভাংচুর ৩জন আহত
স্টাফ রিপোর্ট: ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার শেরপুর ইউনিয়নের পাচঁরুখী বাজারে মঙ্গলবার (১৫মে) শেরপুর ইউনিয়ন মহিলা আওয়ামীলীগের সমাবেশ স্থলের মঞ্চ ব্যাপক ভাংচুর ও হামলা চালিয়ে একই দলের অপর গ্রুপ পন্ড করে দিয়েছে। জানাযায়, শেরপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক হিসাবে সম্প্রতি উপজেলা আওয়ামীলীগ ইয়াহিয়া সুমন নামে একজনকে দায়িত্ব প্রদান করে। একই পদ প্রত্যাশী শেরপুর গ্রামের আমজদ বেপারীর পুত্র আবুল কালাম এতে ক্ষুব্ধ ছিল। মঙ্গলবার সকাল ১১টায় পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী মহিলা আওয়ামীলীগের উপজেলা শাখার নেতৃবৃন্দ অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকার কথা ছিল। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে স্থানীয় নেতৃবৃন্দের সাথে কথা বলে জানাযায়, প্রধান অতিথি সহ নেতৃত্ববৃন্দ সমাবেশ স্থলে পৌছার পূর্বেই আবুল কালাম আজাদ ও মুক্তার হোসেন টিটুর নেতৃত্বে ১০/১৫জন আওয়ামীলীগের নেতাকর্মী দেশীয় অস্ত্র নিয়ে মঞ্চ ভাংচুর করে সমাবেশ পন্ড করে দেয়। এসময় শেরপুর ইউনিয়ন যুবলীগ আহ্বায়ক বাদল মিয়া, ছাত্রলীগ নেতা মোবারক ও শ্যামল প্রতিপক্ষের হামলায় আহত হয়েছে। ঘটনার সংবাদ পেয়ে দ্রুত নান্দাইল মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মো. কামরুল ইসলাম মিয়া সহ একদল পুলিশ ঘটনাস্থল পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করেন। উদ্বোত ঘটনার প্রেক্ষিতে দলীয় নেতৃবৃন্দ মহিলা সমাবেশ স্থগিত করে। উক্ত ঘটনা নিয়ে শেরপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীদের মাঝে উত্তেজনা বিরাজ করছে। নান্দাইল মডেল থানার সিনিয়র এসআই নাজিম উদ্দিন হামলা ও ভাংচুরের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, “বিষয়টি নিজেদের মধ্যে সংঘটিত হয়েছে। বিকাল সাড়ে পাচঁটা পর্যন্ত উক্ত ঘটনায় থানায় কোন লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয় নাই।” শেরপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক (ভারপ্রাপ্ত) ইয়াহিয়া সুমন জানান, উপজেলা নেতৃবৃন্দের সাথে আলোচনা করে মঞ্চ ভাংচুর কারীদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করা হবে।

Facebook Comments





Related News