class="post-template-default single single-post postid-7136 single-format-standard" >

কিশোরগঞ্জে পাগলা মসজিদের দানবাক্সে ৮৪ লাখ ৯২ হাজার টাকা

স্টাফ রিপোর্টঃ কিশোরগঞ্জে পাগলা মসজিদের দানবাক্সে এবার ৮৪ লাখ ৯২ হাজার টাকা জমা পড়েছে। এছাড়াও সোনা, রূপাও বৈদেশিক মুদ্রাও জমা পড়েছে এ দান বাক্সে। তবে এসবের হিসাব এখনো করা হয়নি। দুই মাস ২৪দিন পর শনিবার সকালে জেলা প্রশাসনের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাগণের উপস্থিতিতে দেশের অন্যতম আয়কারী ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান হিসেবে স্বীকৃত মসজিদটির দান বাক্সগুলো খোলা হয়।

এসময় টাকা গণনার কাজ তদারকি করেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আলমগীর হুছাইন, সিনিয়র নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবু তাহের সাঈদসহ প্রশাসনের কর্মকর্তা, মসজিদ পরিচালনা কমিটির সদস্যবৃন্দ ও সার্বক্ষণিক দায়িত্বরত কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ।

সর্বশেষ গত ৬ই জানুয়ারি মসজিদের ৮টি দানবাক্স খুলে গণনা করে এক কোটি ২৭ লাখ ছত্রিশ হাজার চার শত একাত্তর টাকা পাওয়া যায়। যা ছিল এ যাবতকালে পাওয়া সর্বোচ্চ টাকা। এর আগে গতবছরের ২৬শে আগস্ট মসজিদের দানসিন্দুক খুলে গণনা করে এক কোটি ১৫ লাখ ৫৯ হাজার টাকা পাওয়া গিয়েছিল।

জেলা শহরের নরসুন্দা নদীর তীরে এই মসজিদটি অবস্থিত। মসজিদের সঙ্গে একটি মাদ্রাসাও রয়েছে। সাধারণ মানুষের মধ্যে বিশ্বাস রয়েছে, এখানে মানত করলে মনোবাসনা পূর্ণ হয়। আর এ কারণেই মূলত দূর-দূরান্তের মানুষও এখানে মানত করতে আসেন। এছাড়াও এখানে জুমার দিন প্রচুর লোক সমাগম হয়। মসজিদে নারীরা আলাদা নামাজ আদায় করতে পারেন।

শনিবার (৩১ মার্চ) সন্ধ্যায় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবু তাহের সাঈদ মুক্তিযোদ্ধার কন্ঠকে জানান, সাধারণত তিন মাস পর পর মসজিদের দানবাক্সগুলো খোলা হয়। শনিবার দানবাক্সগুলো খোলা হয়েছে। টাকাগুলো গুণে এতে নগদ ৮৪ লাখ ৯২ হাজার টাকা পাওয়া যায়। টাকাগুলো পুলিশ এস্কর্ট সহকারে রুপালী ব্যাংকে জমা রাখা হচ্ছে।

Facebook Comments





Related News