class="post-template-default single single-post postid-6028 single-format-standard" >

বেসরকারি শিক্ষকসম্প্রদায়ের অনশন বনাম প্রাপ্তি    – প্রভাষক মাহবুবুর রহমান বাবুল

 

 

হাজার হাজার কোটি টাকা ব্যায়ে নির্মিত হচ্ছে

পদ্মা সেতু। যে কারিগর বা ইঞ্জিনিয়ার তেরি করেন

সন্মানীত শিক্ষকসম্প্রদায়। তাদের হাতে দেশ খ্যাত শিক্ষক,  ডাক্তার ইঞ্জিনিয়ার তৈরী হলেও সেই আদি কারিগর শিক্ষকসম্প্রদায় আজন্ম অভিশপ্ত হয়ে ধুকে ধুকে জীবন কাটাচ্ছে। এ অভিশাপ থেকে শিক্ষকসম্প্রদায়কে মুক্ত করতে যুগে যুগে অসংখ্য ভুঁইফোড় সংগঠনের ডানা গজিয়েছে। যারা লেজুড়বৃত্তি রাজনীতর সংগে যুক্ত হয়ে নিজেদের ভাগ্যের চাকা পরিবত’ন করেছে। সাধারণ শিক্ষকসম্প্রদায় আজন্ম অভিশপ্ত রয়ে গেল। এদের মুক্তির লক্ষ্যে ডিজিটাল যুগে ফেসবুক নির্ভর সংগঠন গড়ে উঠে বাংলাদেশ বেসরকারি শিক্ষক ও কম”চারী ফোরাম। মাত্র ছয়মাস বয়সে সারাদেশব্যপী শিক্ষকসম্প্রদায়কে একত্রিত করতে সক্ষম হন একমাত্র একক নীতির বদোলতে।

বিগত নভেম্বর মাসে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সর্বকালের বৃহত শিক্ষক সমাবেশ করে ফোরামের কারিশমা সারাদেশব্যপী ছড়িয়ে পড়ে এবং সাধারণ শিক্ষক সমাজের আস্থা অর্জন করতে সক্ষম হয়। এরই ধারাবাহিকতা ডিসেম্বর মাসে নানা কম’সুচীর মাধ্যমে

অতিবাহিত হয়। অবশেষ একদফা দাবী নিয়ে রাজপথে আমরণ অনশনে ঘোষনা দেন। যেখানে দাবী আদায়ে হাজার হাজার শিক্ষক যোগদেন। যোক্তিক দাবীর সাথে সংহতি প্রকাশ করেন বিভিন্ন সংগঠের প্রধান গন। দীর্ঘ ১৮ দিন অভুক্ত পথ চলার পর সরকারের তরফ থেকে মান্যবর সচিব ৫% ইনক্রিমেন্ট ও ২০% বোশেখী ভাতা ঘোষনা দেন যা চলতি অথ’বছর থেকে কায’কর।

ঘোষণাকে সাধুবাদ জানিয়েছেন সন্মানীত শিক্ষকসম্প্রদায়। তবে এর মাঝে সংশয় পোষণ করছেন অনেকেই। কেননা এ ঘোষনা বানচালের নিমিত্তে যে নানা ফন্দী হবেনা তা নিশ্চিত ভাবে বলা যায়নি। কেননা ফোরামের অল্প সময়ের অজ’ন অনেকেরই গাত্রদাহের কারণ। সকলকে সজাগ ভুমিকা এখন সময়ের দাবী। ফোরাম আজ সগৌরবে দেদীপ্যমান। এর চলার পথ রিয়ার স্টল থেকে বেলকনিতে বেলকনি থেকে ডিসি তে

বহমান। সেই অংকুরোদম থেকে ফুলে ফলে আচ্ছাদিত হচ্ছে। এর বহমান গতি যেন রুদ্রধার না ঘটে সেদিকে সুভাবনা প্রতিটি কারিগরে নেতিক দায়িত্ব। জয়হোক অবহেলিত শিক্ষকসম্প্রদায়ের জয়হোক ফোরামের।

Facebook Comments





Related News