class="post-template-default single single-post postid-4417 single-format-standard" >

আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগ অংশ নেবে না: গয়েশ্বর

 

আগামী নির্বাচনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ অংশ নেবে না বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। শেখ হাসিনাকে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া ক্ষমা করেছেন, আমরাও ক্ষমা করে দেব। কিন্তু জনগণ কী ক্ষমা করবে? জনগণের দাবি এক, শেখ হাসিনার পদত্যাগ। পাশাপাশি জনগণ এও বিশ্বাস করে আগামীতে অবাধ নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে আওয়ামী লীগ সে নির্বাচনে অংশ নেবে না।

গতকাল সোমবার দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টনস্থ ভাসানী ভবনে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির উদ্যোগে তারেক রহমানের ৫৩তম জš§দিন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে গয়েশ্বর চন্দ্র রায় এ কথা বলেন।তিনি আওয়ামী লীগের উদ্দেশে বলেন, তাই যারা এখন ক্ষমতায় আছেন তারা গণতন্ত্রের পথে ফিরে আসুন। একটু ক্ষমা চান। এই দেশ সেই দেশ ঘুরতে হবে না। বাংলাদেশেই থাকতে পারবেন। গয়েশ্বর বলেন, আমরা এখন ঘন ঘন আদালতে হাজিরা দেই। আপনারা মাঝে মাঝে আদালতে হাজিরা দেবেন।

তারেক রহমানের জš§দিন পালনে যতই বাধা দেয়া হচ্ছে আমাদের অনুভূতি আরো বেগবান হচ্ছে মন্তব্য করে গয়েশ্বর বলেন, প্রায় ২ যুগ ধরে তাকে নির্বাসিত করার জন্য তার জীবন ও চরিত্র কলুসিত করার চেষ্টা করা হয়েছে। তবে সব চেষ্টা অপচেষ্টায় ধূলিসাৎ হয়েছে। কারণ যে গাছে ফল হয় সে গাছেই মানুষ ঠিল মারে।বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, জš§দিনকে কেন্দ্র করে গত কয়েকদিন ধরে তারেক রহমানকে অনুভব করছি। সাধারণ মানুষও তার জš§দিন পালন করছে। তিনি হঠাৎ করেই রাজনীতিতে আসেননি।

তিনি বর্তমানে দেশের বাইরে আছেন তারপরও তার ওপর মিথ্যা মামলা দেয়া হচ্ছে। প্রতিহিংসার যেন শেষ নেই। মানসিকভাবে বিপর্যস্ত করো, হয়রানি করো, শাস্তি দাও- এটাই সরকারের টার্গেট।ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কাজী আবুল বাসারের সঞ্চালনায় দলটির যুগ্ম-মহাসচিব ও মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সভাপতি হাবিব উন নবী খান সোহেলের সভাপতিত্বে এ সময় আরো বক্তব্য রাখেন বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা আবদুস সালাম, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ, জাতীয়তাবাদী ওলামা দলের সভাপতি আবদুল মালেক, মহানগর উত্তর বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি বজলুল বাসিত আঞ্জু প্রমুখ।

Facebook Comments





Related News